মালয়েশিয়ায় কারখানার বাইরে খোলা জায়গায় পড়ে ছিল অসুস্থ রেমিট্যান্স যোদ্ধার লাশ
মালয়েশিয়ায় কারখানার বাইরে খোলা জায়গায় পড়ে ছিল অসুস্থ রেমিট্যান্স যোদ্ধার লাশ

মালয়েশিয়ায় কারখানার বাইরে খোলা জায়গায় পড়ে ছিল অসুস্থ রেমিট্যান্স যোদ্ধার লাশ

সচ্ছলতা ফেরাতে মালয়েশিয়ায় গিয়েছিলেন শাহজাদপুরের তরুণ সাইদুল ইসলাম। তাকে ফিরতে হলো লা’শ হয়ে। মালয়েশিয়া তোজোটিয়া ইম্পিয়ান বিলাস মনোফ কিয়ারায় কর্মরত সাইদুল কর্মস্থলে পাননি নূ্যনতম চিকিৎসার সুবিধা।
মৃ’ত্যুর পর লা’শটি পড়ে ছিল কারখানার বাইরে খোলা জায়গায়। এমনকি সাইদুল ওই কারখানায় যে কাজ করতেন সে বিষয়টিও অ’স্বীকার করা হয়। ২০১৪ সালে মালয়েশিয়া পাড়ি জমান খুকনী নতুনপাড়া গ্রামের পরিবারের একমাত্র উপার্জনকারী মো. আব্দুল আউয়ালের ছেলে সাইদুল ইসলাম (২৬)।

আশা ছিল পরিবারে স’চ্ছলতা আনবেন। ভাগ্যের পরিহাসে সেই প্রবাস থেকে তিনি ফিরলেন লা’শ হয়ে।
সাইদুলের পরিবার জানায়, গত ৬ জানুয়ারি অ’সু’স্থবোধ করেন সাইদুল। এনজিওগ্রাম করার পর জানা যায় তার হা’র্ট অ্যা’টা’ক হয়েছিল। মৃত্যুর আগে বাবা-মাকে ফোন করে টাকা পাঠাতে বলেছিলেন।

সেই সঙ্গে দেশে ফেরার আ’কুতিও জানান। ছেলের য’ন্ত্র’ণা-ক’ষ্ট স’হ্য করতে না পেরে ৬০ হাজার টাকাও পাঠিয়ে ছিলেন তার বাবা। ১৩ তারিখে ফ্লাইটও ছিল তার। ভাগ্য তার সহায় হয়নি। ৯ তারিখে চলে যান না ফেরার দেশে।
ইউএনও শাহ মো. শামসুজ্জোহা বলেন, মালয়েশিয়া থেকে সাইদুল ইসলামের ম’রদে’হ আনার ব্যাপারে সহযোগিতা করা হয়েছে। তিনি আরও বলেন, বিনা চিকিৎসায় তার মৃ’ত্যুর বিষয়ে পরিবারের পক্ষ থেকে প্রবাসীকল্যাণ মন্ত্রণালয়ে আবেদন করতে পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।